আমার মেয়ে

স্বপ্ন দেখি, মেয়েটা আমার একটু একটু করে বড় হচ্ছে
গাল ভরা হাসি, চারটে মাত্র দাঁত উঁকি দেয়, মেঘলা রাতের আকাশে তারার মতো।

মাথা ভর্তি কোঁকড়া চুল, বাম হাতের কড়ি আঙ্গুলটা একটু ছোট
ওকে নিয়ে আমার বেঁচে থাকা, চোখ জুড়ে স্বপ্ন কত শত।

ভারী দুরন্ত, রাতদিন খালি ছুটোছুটি, উঠোনের এক কোনে তার খেলনা-পাতি
কাঁঠাল গাছের ফিঙে পাখিটাও পাহারা দেয়, ওরে, গাই, ও যে মেয়ের খেলার সাথী।

আমাদের সেই পুরোনো বাড়ি, রান্না ঘরের ছাদটা খানিক ভাঙা,
ভয় পাই দামাল শিশু হটাৎ যদি বিপদ ঘটায়!

আমি তাকে আটকাবো কি!
সেকি আমার বারণ মানে!

মা কে ও সে শাসন করে, চোখ পাকিয়ে, দাঁত খেঁচিয়ে চুলের মুঠি চেপে ধরে।

বিচ্ছু মেয়ে, আমার মেয়ে,কেবল আমার।
ঘুম ভাঙল ভোর রাতে,বেজায় খুশি,ভোরের স্বপ্ন সত্যি হয়?

মা ফিরছে ফুল তুলে ,আমার মা ,আঁচলে বাগান
আমিও মা, মেয়ের মা।।

— সুপর্ণা ঘোষ (০৯ জুন  ২০১৭)

About Author

“মেঘ বৃষ্টি” আসলে আমার ডাইরির পাতা। কিছুটা কল্পনা, কিছুটা ছেলেমানুষি, কিছুটা অভিমান আর অনেকটাই স্মৃতি। ছোটবেলা থেকেই লিখতে ভালো লাগতো, ভাবতে ভালো লাগতো। ডাইরির পাতায় কত আঁকিবুঁকি, কত কাটাকুটি, কত দুষ্টুমি আছে। যতটা সম্ভব “মেঘ বৃষ্টি” তে তুলে ধরলাম।

Leave A Reply